নভেম্বর 30, 2022
ডেথ ওভারের খরুচে বোলিং ভাবাচ্ছে ডোনাল্ডকে

ডেথ ওভারের খরুচে বোলিং ভাবাচ্ছে ডোনাল্ডকে

১৭তম ওভারে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের জোড়া আঘাতের পর নিউজিল্যান্ডকে ২০০-এর নিচে আটকে রাখার একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল। তবে ডেথ ওভারে (১৬-২০) বোলারদের ব্যর্থতায় সেটা আর সম্ভব হয়নি। আজ ডেথ ওভারের শুরুটা সাইফউদ্দিন ভালো করলেও শেষ ৩ ওভারে বাংলাদেশের বোলাররা দিয়েছেন ৪২ রান, যা নিউজিল্যান্ডের স্কোরটা নিয়ে যায় নিরাপদ দূরত্বে। লক্ষ্য ২০০ রানের কম থাকলে বাংলাদেশ জিতে যেত, সেটা নিশ্চিত করে বলা না গেলেও সম্ভাবনা যে বেড়ে যেত, সেটা বলাই যায়।

শুধু নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আজকের ম্যাচ কিংবা চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজেই ডেথ ওভারগুলোতে বোলাররা ভালো করছেন না, তা নয়। ডেথ ওভারে বাংলাদেশি বোলারদের দুর্দশা অনেকটা চিরন্তন। দলের সেরা পেসার মোস্তাফিজুর রহমানের সাম্প্রতিক সময়ে ডেথ ওভারের পারফরম্যান্স দেখলে সে চিত্র অনেকটাই ফুটে উঠবে।

চলতি বছরে ডেথ ওভারে ৯ ইনিংস বোলিং করে ওভারপ্রতি ১০.৯১ রান দিয়েছেন মোস্তাফিজ। এ সময়ে ডেথ ওভারে তিনি উইকেট নিয়েছেন মাত্র ৩টি। দলের আরেক পেসার তাসকিন আহমেদ দলের ইনিংসের ১৬ থেকে ২০ ওভারের সময় রান দেন আরও বেশি। চলতি বছরে ৫ ইনিংস বল করে ওভারপ্রতি ১১.৫০ করে রান দিয়েছেন। ইবাদত হোসেনও হাঁটছেন একই পথে। সদ্যই অভিষেক হওয়া এই পেসার ৩ ইনিংস বল করে ওভারপ্রতি ১০.৬৬ রান দিয়েছেন।

শেষ সময়ে চাপের মুহূর্তে পেসারদের এভাবে ভেঙে পড়া নিঃসন্দেহে বড় চিন্তার কারণ পেস বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ডের। ম্যাচ শেষে সে হতাশাও তিনি লুকাননি, ‘আবারও শেষ কয়েক ওভারে ৬৫ রানের মতো দিয়েছি, এটা আসলে আমাদের পীড়া দিচ্ছে। আমরা আরও সক্রিয় হতে পারি, একটু কমিয়ে আনতে হবে। আগ বাড়িয়ে কিছু করা যাবে না। সব বিভাগেই দুর্দান্ত হতে হবে। আমরা অনেক দিন থেকেই টি-টোয়েন্টি নিয়ে কথা বলছি, নানা দিক নিয়ে। কিছু ব্যাপারে আমাদের আসলে নিখুঁত হতে হবে। বিশেষ করে চাপের মুহূর্তে। বিশেষ করে ডেথে বোলিংয়ে। শরীফুল ও ইবাদত আজ ভালো করেছে। তবে কাল আরেকটু নিখুঁত দেখতে চাইব এমন চাপের পরিস্থিতিতে।’

নিউজিল্যান্ডের বোলারদের ওপর সাকিব আল হাসান চড়াও হয়েছিলেন। খেলেছেন ৪৪ বলে ৭০ রানের ইনিংস। মারমুখী সাকিবের সামনেও ডেথ ওভারে দারুণ বোলিং করেছেন ট্রেন্ট বোল্ট। শেষ ২ ওভারে রান দিয়েছেন মাত্র ১১।

তাই চাপের মুহূর্তে বোলিংয়ের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে অ্যালান ডোনাল্ড পেস বোলারদের সামনে উদাহরণ টেনছেন ট্রেন্ট বোল্টকে, ‘আজ ট্রেন্ট বোল্ট যেমন করেছে অসাধারণভাবে, বিশেষ করে সাকিব যখন মারছিল, তখন দারুণ কিছু ইয়র্কার করেছে। আসলে আজ নিউজিল্যান্ডকে কুর্নিশ জানাতে হবে, সব বিভাগেই তারা দারুণ ছিল। প্রথম বল থেকেই নিয়ন্ত্রণ করেছে তারা ম্যাচটি।’